পূর্বধলায় সরকারি কলেজে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল


পূর্বধলা (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি: নেত্রকোণার পূর্বধলা সরকারি কলেজে ডিগ্রি তৃতীয় বর্ষের সেশন ফি ও ফরম ফিলাপে অতিরিক্ত টাকা নেওয়া ও নানা অনিয়ম দুর্নীতির প্রতিবাদে সোমবার (১৪ অক্টোবর) দুপুরে ক্যাম্পাসে মানববন্ধন করেছে শিক্ষার্থীবৃন্দ।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা অযৌক্তিক ফি নেওয়ার সিদ্ধান্ত থেকে কলেজ কর্তৃপক্ষকে সরে আসার আহবান জানায়। সেইসাথে শিক্ষার্থীদের দুর্নীতির মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার কারণে অনতিবিলম্বে ভারপ্রাপ্ত প্রিন্সিপালকে বহিস্কার এবং অতিরিক্ত টাকা নেওয়া শিক্ষার্থীদেরকে টাকা ফেরত দেওয়ার জোড় দাবী জানান।

মানববন্ধন চলাকালে শিক্ষার্থীরা বলেন, পূর্বধলা সরকারি ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আনোয়ারুল হক রতন এতদিন শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা নিচ্ছে। অন্যান্য কলেজে ১ হাজার ৭০০ টাকা নিলেও এ কলেজে নেওয়া হচ্ছে ২ হাজার ৭৫০ টাকা। এই এলাকার সাধারণ পরিবারের শিক্ষার্থীদের অনেকেই অতিরিক্ত টাকা দিতে পারছে না।
মানববন্ধন চলাকালে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধি রাজিবুল ইসলাম রাজীব জানান, ভর্তির সময়, ফরম পূরণের সময়, ড্রেস বিক্রির সময়, এছাড়াও বিভিন্ন খাতে রিসিট ছাড়া লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়েছে যেগুলো প্রমাণ সহ ধরা হয়েছে। আগামী ৭ দিনের মধ্যে তদন্ত কমিটি প্রতিবেদন দাখিল করবেন মর্মে ওসি মোহাম্মদ তাওহীদুর রহমান এর সমঝোতায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল স্থগিত করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে কুলসুমের জানান, রাজিবুল ইসলাম রাজিবের অভিযোগের প্রেক্ষিতে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি ৭ দিনের মধ্যে তদন্ত কমিটি প্রতিবেদন দাখিল করবেন।
পূর্বধলা সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আনোয়ারুল হক রতন জানান, শিক্ষার্থীদের অভিযোগের ভিত্তিতে 
উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মে কুলসুম সুষ্ঠু তদন্ডের জন্য তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করে আমাকে চিঠি দিয়েছেন। সহকারি কমিশনার ভূমি ফৌজিয়া নাজনীনকে প্রধান করে কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার শফিকুল বারী, পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা শেখ মোঃ মহসিন। আমি সকল কাগজপত্র প্রস্তুত করছি তদন্ত কমিটির যে সিদ্ধান্ত গ্রহন করবেন তা আমি মেনে নিবো। তিনি সাংবাদিকদের জানান, কলেজের বেতন ১৬০ টাকা ছিল তা থেকে কমিয়ে ২৫ টাকা নির্ধারণ করে দিয়েছি। এর কোন পরিপত্র আছে কিনা? প্রশ্ন করলে তিনি জানান মানবিক কারণে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

পূর্বধলা থানার ওসি মোহাম্মদ তাওহীদুর রহমান জানান, কলেজের শিক্ষার্থীরা তাদের দাবি দাওয়া নিয়ে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করেছেন। নিরাপত্তার জন্য কলেজে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। আগামী ৭ দিনের মধ্যে তদন্ত কমিটি প্রতিবেদন দাখিল করবেন। অভিযোগ প্রমাণিত হলে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

No comments

Powered by Blogger.