চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে কিশোরীকে ধর্ষণ, ও ধর্ষণকারী আটক

               
 চাঁদপুুর প্রতিনিধীঃ চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে আত্মীয়ের বাড়িতে যাওয়ার পথে এক কিশোরী ধর্ষণের শিকার হয়েছে। বন্ধু রফিক ভুইয়ার সহযোগিতায় ফয়সাল ভুইয়া নামের এক বখাটে ওই কিশোরীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় রফিক ভুইয়াকে গ্রেপ্তার করেছে ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশ। ধর্ষক ফয়সাল পলাতক। বুধবার দুপুরে ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে ফরিদগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।


অভিযোগে জানা গেছে, মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৩টায় ওই কিশোরী তার আত্মীয়ের বাড়িতে যাচ্ছিল। মানিকরাজ নামক এলাকায় একটি দোকানের সামনে বসেছিল বখাটে ফয়সাল ভুইয়া (২৩) ও রফিক ভুইয়া (২১) নামের দুই বন্ধু। এ সময় দোকানপাট বন্ধ ছিল ও বৃষ্টি হচ্ছিল। আশপাশে কোনো লোকজন ছিল না। কিশোরীকে দেখে পিছু নেয় দুই বন্ধু। তারা এ কথা-সে কথা জিজ্ঞাসা করে তাকে।
একপর্যায়ে কিশোরীর মুখ চেপে রাস্তার পার্শ্ববর্তী নির্মাণাধীন তহসিল অফিসের ভেতর জোরপূর্বক ও টেনেহেঁচড়ে নিয়ে যায় তারা। সেখানে রফিক ভুইয়ার সামনে জোরপূর্বক কিশোরীকে ধর্ষণ করে বখাটে ফয়সাল। ধর্ষণের ঘটনা জানাজানি হলে কিশোরীকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে ছেড়ে দেয় তারা।


বুধবার দুপুরে থানায় লিখিত অভিযোগে কিশোরীর মা বলেন, বাড়ি ফিরে মেয়ে ঘটনা জানায়। পার্শ্ববর্তী দেইচর গ্রামের ভুইয়া বাড়ির এনা ভুইয়ার ছেলে ফয়সাল ভুইয়া ও মৃত মফিজুল হক ভুইয়ার ছেলে রফিক ভুইয়া এই সর্বনাশ করেছে। আমি তাদের বিচার চাই।

এদিকে ফরিদগঞ্জ থানার এসআই সুমন্ত মজুমদার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে তাৎক্ষণিক অভিযান চালিয়ে বিকেল ৩টায় সহযোগী রফিক ভুইয়াকে গ্রেপ্তার করেন। খবর পেয়ে পালিয়ে যায় ধর্ষক ফয়সাল ভুইয়া।

এ ব্যাপারে ফরিদগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ রকিব উদ্দিন জানান, প্রাথমিকভাবে ধর্ষণের অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। ফয়সালকে আটক ও মামলার যথাযথ কার্যক্রমের জোর তৎপরতা চলছে।

No comments

Powered by Blogger.