কেঁচো খুড়তে বেড়িয়ে এল সাপ, ৮০ লক্ষ টাকা সিলেটের ডিআইজির বাসা থেকে উদ্ধার


কেঁচো খুড়তে বেড়িয়ে এল সাপ সিলেটের ডিআইজি প্রিজন পার্থ গোপাল বণিক এর বাসায় কিছু নগদ টাকা আছে এই তথ্যের ভিত্তিতে তাকে নিয়ে অভিযান চালায় দুর্নীতি দমন কমিশন দুদক বাসায় এবং পাশের বাসার ছাদে চুরে ফেলা ব্যাক মিলিয়ে মোট আসি লক্ষ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে তবে এর পরেও নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন তিনি।

 সিলেটের আগে চট্টগ্রাম কারাগারে দায়িত্ব পালন করেছেন কারা উপ মহা পরিদর্শক পার্থ গোপাল বণিক আর তখন চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে রোববার সকাল থেকেই তাকে দুদকের সেগুনবাগিচা কার জন্য জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। একপর্যায়ে অনুসন্ধান কর্মকর্তা জানতে পারেন তার বাসায় নগদ বহু টাকা রয়েছে। পার্থ গোপাল বণিক কে নিয়ে পরিচালক মোহাম্মদ ইউসুফের নেতৃত্বে অভিযানে বের হয় দুদক। রাজধানীর ধানমন্ডি এলাকার ভুতের গলির এই বহুতল ভবনে থাকেন তিনি শুরুতে সিলেটে কারা উপ-মহা পরিদর্শক জানান তার বাসা তালা দেওয়া রয়েছে প্রায় দেড় ঘণ্টা পর ভেতর থেকে দরজা খুলে দেন তার স্ত্রী মঞ্জু সাহা।

 ঘরে ঢুকে টাকা অনুসন্ধান শুরু করে দুদক একপর্যায়ে ব্যালকনি থেকে পাশের দালানের ছাদে দুটি ব্যাগ দেখতে পায় দুদক কর্মকর্তারা। সেখান থেকে উত্তর করা ব্যাগ নিয়ে আসেন পার্থ গোপাল বণিক নিজেই। এর আগে দুদকের অভিযানে ঘরের ভিতরে বিভিন্ন কক্ষ থেকে উদ্ধার করা হয় বান্ডেল বান্ডেল টাকা একই সাথে পাশে দালানের ছাদের উপরে পাওয়া। ব্যাগের মতো থেকে বের হয় টাকার বান্ডিল দুদক জানায় মোট 80 লাখ টাকা উদ্ধার করা হয় পার্থ গোপাল বণিক এর বাসা থেকে। এই ব্যাগ ভর্তি টাকা পার্থ গোপাল বণিক এর স্ত্রী সরানোর চেষ্টা করেছিলেন বলে জানান দুদক কর্মকর্তারা। এদিকে অভিযুক্ত কারা উপমহাপরিদর্শক নিজেকে নির্দোষ দাবি করেছেন। আর দুদক বলছে এইটা কার কোন বৈধতা নেই। রাজধানীতে এই ফ্লাট আর নামি ব্র্যান্ডের গাড়ি ছাড়া আর কি কি সম্পদ রয়েছে পার্থ গোপাল বণিক এর তার খোঁজ চলছে বলে জানিয়েছে দুদক।

No comments

Powered by Blogger.